“খাদ্যের মান নিশ্চিত করতে আপস করা যাবে না” – চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম

0
36

 Girisaikat Desk :

খাদ্যের মান নিশ্চিত করতে জাতীয় মান নির্ধারণী প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই এর আপস করা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। তিনি রোববার  বিএসটিআই (বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড  টেস্টিং ইনস্টিটিউশন) আয়োজিত ৪৯তম বিশ্ব মান দিবসের আলোচনা সভায়  এ মন্তব্য করেন। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক মান’।

চট্টগ্রাম নগরের আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে  বিএসটিআই এর চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয়ের পরিচালক প্রকৌশলী মো. সেলিম রেজার সভাপতিত্বে   বিএসটিআই’র কর্মকর্তা শিমুল বিশ্বাস ও দেবী দাশের সঞ্চালনায় এক আলোচনা সভা হয়। সভায়  প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি এসএম নাজের হোসাইন।

bsti-nazr

সভায় বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম চেম্বারের সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমদ, চেম্বার পরিচালক অঞ্জন শেখর দাশ, বিএসটিআই’র উপ-পরিচালক শওকত ওসমান, বনফুল অ্যান্ড কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক আমানুল আমান, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের আইন সম্পাদক জয়নাল আবেদিন রানা,  চট্টগ্রাম ড্রিংকিং ওয়াটার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আবদুল্লাহ্ আদনান, ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগরের যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম, কামাল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি খালেদ খান প্রমুখ

বিএসটিআই পরিচালক প্রকৌশলী মো. সেলিম রেজা বলেন, প্রতি বছর ১৪ অক্টোবর বিশ্বব্যাপী মান দিবস পালন করা হয়। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে রপ্তানির ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মান অপরিহার্য। প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকতে হলে বিশ্ব মান নিশ্চিত করতে হবে। সরকার বিএসটিআইকে আধুনিকায়নের উদ্যোগ নিয়েছে। দেশব্যাপী বিএসটিআই এর কার্যক্রম ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। জনস্বার্থ ও জনস্বাস্থ্যের বিষয় বিবেচনা করে ভেজাল, মানহীন পণ্য উৎপাদন বন্ধে বিএসটিআই কাজ করে যাচ্ছে। শিল্পায়ন ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে পণ্যের মান নিশ্চিত করছে বিএসটিআই। ২১টি পণ্য বিএসটিআই সনদে ভারতের বাজারে প্রবেশাধিকার পেয়েছে।

ক্যাব  সভাপতি এসএম নাজের হোসাইন বলেন, মানের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে। ওষুধ, বেকারি পণ্যসহ অনেক পণ্য বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে।  সমস্যা হচ্ছে আসলের পাশাপাশি নকল, ভেজাল পণ্যে বাজার সয়লাব হচ্ছে। মানহীন ইলেকট্রনিকস, সিকিউরিটি ক্যামেরা জাতীয় পণ্যে  বিক্রি হচ্ছে। এর কারণে ভোক্তারা একদিকে ঠকছে, অন্যদিকে নানান পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ভুগছে। তাই বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে।

প্রধান অতিথি চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, জাপান ভালো দামে মানসম্পন্ন খাদ্যপণ্য আমদানি করে। মানের প্রশ্নে তারা আপস করে না। খাদ্যপণ্যের ব্যাপারে যেন বিএসটিআই আপস না করে। ১৬ কোটি মানুষের এ দেশে খাদ্য, পানি, ওষুধ, শিশুখাদ্য ইত্যাদিতে কোনো আপস করা যাবে না। বিদেশে যা রপ্তানি হচ্ছে সেই খাদ্য, পানীয়, ওষুধ দেশেও বাজারজাত করতে হবে।  অনলাইনে ব্যবসার সুবিধা যেমন আছে তেমনি কিছু অসুবিধাও আছে, এ ব্যাপারে ভোক্তাদের সচেতন, সক্ষম হতে হবে।