‘রেজাউল’ একজন মানবিক দেশ প্রেমিকের চির বিদায়

0
62

মোঃ নাছির উদ্দিন অনিক,

রেজাউল করিম সৌআরবে ডাঃ সোলাইমান আল হাবিব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় আনুমানিক ভোর ৪:৫৫ ঘটিকায় মহান আল্লাহর ডাকে সাড়া দিয়ে আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন।

তাঁর মৃত্যুর খবরটি শোনার পর চোখ ভিজে আসে। চটপটে, হাস্যজ্জল, প্রতিবাদী, মানবিক, বন্ধুবৎসল এক দেশ প্রেমিকের বিদায়, মানতে না পারার মাঝেও মেনে নিতে হচেছ- চিরাচরিত নিয়ম বলে। রেজাউল যখন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁর বন্ধুমহলের প্রায় প্রত্যেকেই করোনা  হতে মুক্তি কামনায় ফেইজবুকের মাধ্যমে মহান আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ করেছিলেন। ভেবেছিলাম বেশিরভাগ লোক ভাল হচ্ছে তার মধ্যে তিনি বিদেশের হাসপাতালে উন্নত  চিকিৎসা আছে বলে ভাল হয়ে যাবেন। কিন্তু না, আজ সকালে ফেইজবুক মারফত জানতে পারলাম তিনি পরলোকে, ইন্নালিল্লাহে ওয়া ই…… । যে ছিল (দেশে অবস্থানকালে) দেশের প্রতিটি প্রতিবাদী মিছিলে সরব সেই সরব মানুষটি করোনা নামক মৃত্যুর মিছিলে নীরবে সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন। মানবিক দেশ প্রেমিক রেজাউলের অসময়ে চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছিনা।  রেজাউল ভাই নেই, ভাবতেই কেমন যেন গা.. ।

রেজাউল লেখাপড়ার দিক দিয়ে আমার এক বৎসরের সিনিয়র ছিলেন, সিনিয়র হলেও আপনি থেকে তুমি সম্বোধন করতাম কারণ হিসেবে বন্ধু সুজিতের খুবই ঘনিষ্টের সুত্র ধরে তার ইলেক্টিক দোকানে প্রায়ই ক্ষনিকের আড্ডা (ও বিদেশ থেকে এলে)

পৌরসভার  এয়াকুব নগরে গ্রামের বাড়ি হলেও নুতুন বাড়ি করেছিলেন পৌরসদরে। মা-বাবার ২য় সন্তান ছিলেন রেজাউল। তাঁর বাবা মাওলানা ইব্রাহীম খলিল ছিলেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। এবং তৎকালীন দাপুটে গ্রাম্য বিচারকদের মধ্যে অন্যতম। রেজাউল লেখাপড়া ইলেক্টিক সাবজেক্ট নিয়ে পলেটেকনিক্যাল কলেজ শেষ করে ভিক্টোরিয়া জুট মিলে চাকরি নেন এবং খুব কম সময়ে সেখানে কর্মরত শ্রমিকদের আস্থাভাজন হয়ে বনে যান শ্রমিক নেতা। এই শ্রমিক নেতা হয়ে যাওয়ার ফলে তৎকালীন বিএনপি‘র আমলে তিনি মামলায় জড়িয়ে যান এবং শেষ পর্যন্ত মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানার ভয়ে দেশ ছাড়তে অনেকটা বাধ্য হয়েছিল রেজাউল। (তাঁর দুটি ছেলে সন্তান প্রথমজন কলেজ ফাস্ট ইয়ার দ্বিতীয় জন অস্টম শ্রেনীতে অধ্যয়নরত) সেই যে সৌদি পাড়ি দিয়েছিল সেই পাড়ি দেওয়া এবং জীবিকার তাগিদে জীবনযুদ্ধে অনেকটাই জয়ী হয়েছিল রেজাউল। সৌদিতে অবস্থানে অনেক সংগ্রামের  পর তাঁর জীবনের সচ্ছলতা এনে দেয়।পৌরসদরে বন্ধু সুজিতদের বিক্রি করা জায়গায় (উত্তর বাজার ডিটি রোড সংলগ্ন) দুতলা এক ঘর করে দুই পুত্র সন্তান নিয়ে গত তিন বছর ধরে অনেকটা সুখেই ছিলেন। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস সেই সুখ বেশিদিন সইল না পরিবারে। করোনা নামক ভাইরাস কেড়ে নিল রেজাউলের প্রাণ ইন্নালিল্লাহে ওয়াইন্না…।

অথচ এই করোনা ভাইরাস নিয়ে সে দেশে ও বিদেশে অবস্থানরত বন্ধু-বান্ধব আত্মীয় স্বজনদের উদ্দেশ্যে প্রতিনিয়তই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেইজবুকে) সচেতনতামুলক পোস্ট করেছে। বন্ধুদের সাথে ভিডিও কলের মাধ্যমে টেলি  কনফারেন্স করেছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য বার বার সকলের দোয়াও  চেয়েছে। অন্যের জন্য বার বার দোয়া চাওয়া ব্যক্তিটি করোনার সাথে যুদ্ধ করে আজ চলে গেলেন। এটাই নিয়তি, একেই বলে ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। ফেইজবুকে তিনি শব্দ শ্রমিকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে সবাইকে সচেতন করার চেষ্টা করেছেন।

ফেইজবুকে তাঁর শেষ পোস্ট ছিল গত ২২ মে, তাঁর গ্রামের বাড়ির একজনের মৃত্যু সংবাদ । তিনি যে দশের কথা দেশের কথা ভাবতেন তাঁর প্রমাণ মিলে পেইজবুক পোস্ট।

নিম্নে রেজাউলের টাইম লাইন থেকে নেয়া সাম্প্রতিক কয়েকটি পোস্ট দেয়া হল।

২০ মে*** আমার ছোট ছেলে মাহীর আজ শুভ জন্ম দিন, তাই পুষ্পিত শুভেচ্ছা অভিনন্দন বাবা, দূর প্রবাসে বসে করোনা সংক্রমণের কারণে পৃথিবীতে মৃত্যুর মিছিল চলছে আল্লাহ তোমাকে হেফাজত করে হায়াতে তাযেবা দান করুন এই দোয়া করি আমিন।

২২ মে ***একটি শোক সংবাদ সীতাকুণ্ড পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের উঃ এযাকুব নগর নিবাসী সীতাকুণ্ড এয়ার বাংলা ইন্টাঃ সর্তঅধিকারী জয়নাল আবেদীনের সহধর্মিণী কিছুক্ষণ আগে নাফেরার দেশে চলেযান ব্রেন টিউমার আক্রান্ত ছিল, আজ বাদ মাগরেব মরহুমার জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হইবে।

১৯ মে ***সীতাকুণ্ড গতকাল COVID 19 (করোনা সংক্রমণে) 11 এগারজন সনাক্ত হয়েছে, কিন্তু পৌরসভা সদরের কলেজ রোডের ডি টি রোড এখন কার চিত্র দেখুন আমরা কেমন জাতি আর্মি পুলিশ উপজেলা প্রশাসন আসার পর এই অবস্থা, যখন প্রশাসনের লোকজন চলেযায় তখন কেমন অবস্থান হতে পারে চিন্তা করুন ।।

১৩ মে *** বিশ্বজুড়ে করোনার প্রাদুরভাবের কারণে হোম কোয়ারেন্টিন জীবন-পার করছি কোটি কোটি মানুষ , এই ভাইরাজ থেকে বাঁচতে পারবো কি যানিনা পারলে ও এই সময়ের মানসিক ভাবে সুস্থ থাকাই বড় চ্যালেঞ্জ ।

১৩ মে ***  শিক্ষা উপ মন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এর আম্মা চট্টগ্রামর সাবেক সিটি মেয়র মরহুম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সহধর্মিণী চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন ভাবী শরীরে করোনা + সংক্রান্ত , গত কাল ছোট ছেলে সনাক্ত হলে পরীক্ষায় একেই পরিবারে ,দুই জন গৃহকর্মী সহ চার জন COVID -19 আক্রান্ত সবাই দোয়া করবেন সুস্থতার জন্য।। একই সাথে আবুধাবী প্রবাসী এলাকার ভাই, লন্ডন প্রবাসী এক আত্মীয় ও দেশে বিদেশের অনেকের জন্য ফেইসবুক পেইজে দোয়া চেয়েছিলেন।

১০ মে *** মন্ত্রী মহোদয় কথায় না কাজে প্রমান দিন প্লিজ — বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্থ উপার্জনের খাত প্রবাসীদের থেকে আসা রেমিটেন্স গত এক দশকে বিশ্বের যে কয়টি দেশের অর্থনীতিতে গতি সঞ্চয় হয়েছে তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম , ধারা বাহিকভাবে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হচ্ছে বাংলাদেশের দেশের অর্থনীতি আকার বানিয়ে গতিময় হয়”আমি পরিসংখ্যান উল্লেখ করছি অনেকেই কাছে অজানা তাই গত বছর 2018/ 2019 অর্থ বছর আয় দাঁড়িয়ে ছিল 779 কোটি 41 লক্ষ মার্কিন ডলার প্রবাসী আয়ের প্রবৃদ্ধির হার 22, 67 শতাংশ। গত অর্থ বছরে প্রবৃদ্ধির হার ছিল 9 শতাংশ বাংলাদেশ ব্যাংক হিসাব মতে ।গত নভেম্বর 155 কোটি 52 লক্ষ মার্কিন ডলার (1,55 বিলিয়ন ) রেমিটেন্স পাঠিয়েছে যার জন্য সরকার 2 শতাংশ হারে নগর প্রণোদনা দিছেন, এখন সময় এসেছে প্রবাসীদের অধিকারের পূর্ণ মর্যাদা দেওয়া অনেক সমস্যার মধ্যে আছি আমরা আপদ কাল অতিক্রম করছি একটু বিবেচনায় নিন ।

৭ মে *** লক ডাউনের মধ্যেই কিছু সময় আড্ডা ছাত্র জীবনের সীতাকুণ্ড সরকারি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় SSC1983ইং সালের বিদায়ী বিভিন্ন দেশে থাকা বন্ধুদের একসাথে নেট জগতের সুবাদে আমি রেজাউল করিম সৌদি আরব, আজম খাঁন চট্টগ্রাম, সাহাদাৎ হোসেন ঢাকা, মমিন মামা এবং রেজাউল করিম (টিটু) স্বপ্নের দেশ আমেরিকা আলিম উল্লাহ (রাহাত) লন্ডন থেকে মোহাম্মদ সোহরাব চট্টগ্রাম থেকে যুক্ত ছিলেন।

আমার দৃষ্টিতে আমি তাকে দেশে দেখেছি একজন সৎ সংগ্রামী শ্রমিক নেতার বেশে। সৌদিতে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত চাকরীর পাশাপাশি তিনি ছিলেন শব্দ শ্রমিক। তিনি নিজস্ব সততার স্বকীয়তা ধরে রেখে দেশের জন্যে  ভাবতেন, এলাকার মানুষের দুঃখ কষ্টে তিনি বিচলিত হয়ে দুঃখ কষ্ট লাগবে জন প্রতিনিধিদের সাথে যোগাযোগ রাখতেন, এলাকার অবকাঠামো উন্নয়নে সরব ছিলেন। সর্বোপরি বড় ভালো একজন মানুষ ছিলেন রেজাউল। দুঃখ থেকে যাবে উনার প্রানহীন দেহখানাও হয়ত কেউ দেখবেনা, অনেক ভালো থাকবেন পরপারে রেজাউল ভাই এই দোয়া করি। আমরা আমৃত্যু বলে যাবো আপনি একজন বড় ভালো মানবিক,দেশ প্রেমিক মানুষ ছিলেন।